জাতীয় প্রতিবন্ধী উন্নয়ন ফাউন্ডেশন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২nd অক্টোবর ২০২০

থেরাপী সেবা সমূহ

ফিজিওথেরাপি

ফিজিও (শারীরিক) ও থেরাপি (চিকিৎসা) – এ দুইটি শব্দ থেকে এসেছে  ফিজিওথেরাপি (Physiotherapy) শব্দটি। এটি একটি স্বতন্ত্র চিকিৎসাব্যবস্থা, যেখানে শারীরিক ব্যায়ামের মাধ্যমে বাস্থ্যসেবা প্রদান করা হয়। এ পদ্ধতির চিকিৎসকরা ফিজিওথেরাপিস্ট নামে পরিচিত।

বিভিন্ন শারীরিক অক্ষমতার জন্য ফিজিওথেরাপির প্রয়োজন হতে পারে।

যেমন:

  • স্পাইনাল কর্ড বা জয়েন্টের রোগ
  • বুক ও পিঠের ব্যথা
  • আঘাতজনিত ব্যথা
  • নার্ভের সমস্যা
  • সেরিব্রাল পালসি
  • শ্বাসকষ্ট
  • স্ট্রোক
  • অপারেশনের পর কোন ডিসঅর্ডার ইত্যাদি

 

অকুপেশনাল থেরাপী

নিম্নলিখিত সমস্যা সংক্রান্ত মানুষদেরকে দেশের ১০৩টি প্রতিবন্ধী সেবা ও সাহায্য কেন্দ্র থেকে বিনামূল্যে অকুপেশনাল থেরাপী সেবা দেয়া হয়ঃ

অকুপেশনাল থেরাপি কি?  

  • অকুপেশনাল থেরাপি একটি বিজ্ঞান সম্মত চিকিৎসা যা একজন ব্যক্তির শারীরিক, মানসিক, সামাজিক এবং পরিবেশগত সমস্যা দূর করার মাধ্যমে তাকে দৈনন্দিন কাজে যথাসম্ভব স্বর্নিভর করার লক্ষ্যে চিকিৎসা সেবা প্রদান করে থাকে।  
  • অকুপেশনাল থেরাপি চিকিৎসা সেবা সেই সকল রোগীদের জন্য প্রয়োজন যাদের দৈনন্দিন জীবনের কাজ কর্ম কোন না কোন ধরণের প্রতিবন্ধকতার কারণে যেমন শারীরিক অক্ষমতা বা বুদ্ধি বৃত্তির বিকাশজনিত নসমস্যার কারণে বাধাগ্রস্থ হচ্ছে। অকুপেশনাল থেরাপি সেবা দেয়া হয় বিভিন্ন ধরণের বিজ্ঞান সম্মত উপায়ে যেমনঃ
  • উদ্দেশ্যমূলখ কাজ (পারপাসফুল এ্যাকটিভিটিস)
  • থেরাপিউটিক এক্সারসাইজ
  • বিশেষ সহায়ক উপকরণ
  • দক্ষতার উন্নয়ন
  • প্রবেশ গম্যতা নিশ্চিতকরণ
  • প্রয়োজন অনুযায়ী পরিবেশের পরিবতন করার মাধ্যমে দৈনন্দিন জীবনের সকল কাজকর্মে অংশগ্রহণ করার মাধ্যমে একজন ব্যক্তির স্বর্নিভরতা অজন করার জন্য অকুপেশনাল থেরাপি চিকিৎসাসেবা প্রদান করা হয়।

যে সকল রোগের চিকিৎসা দেয়া হয়ঃ

  • স্নায়ুরোগ(মেরুরজ্জুতে আঘাত, প্যারালাইসিস)
  • অটিজম
  • সেরিব্রাল পালসি
  • মানসিক রোগ
  • বিষন্নতা
  • সিজোফ্রেনিয়া
  • বান
  • হাড়ভাঙ্গা
  • আর্থ্রাইসিস
  • নার্ভ্ ইনজুরি
  • ডাউন সিনড্রেমা
  • বুদ্ধি প্রতিবন্ধী

অকুপেশনাল থেরাপি চিকিৎসার সুফলঃ

  • দৈনন্দিন জীবনের কাজকম যেমন-জনজ হাতে ভাত খাওয়া,তজামা-কাপড় পরিধান করা, গোসল করা, চুল আচড়ানো ইত্যাদি করতে পারা।
  • হাতের দক্ষতা বৃদ্ধি যেমন-হাতের লেখা, হাত দিয়ে কোন জিনিষ ধরতে পারা।
  • গ্রসমোটর যেমন-হাঁটা চালা, দৌড়ানো ইত্যাদি।
  • ভারসাম্যতা রক্ষা
  • বুদ্ধি বৃত্তির বিকাশ
  • অনুভূতির সমন্বয় সাধন করা
  • সামাজিক দক্ষতা বৃদ্ধি
  • খেলা-ধূলায় অংশগ্রহণ বৃদ্ধি, যোগাযোগের দক্ষতা বৃদ্ধি ইত্যাদি। 

 

স্পিচ এন্ড ল্যাংগুয়েজ থেরাপী

যে সকল ব্যক্তি (শিশু/বয়স্ক) তাদের গঠনগত অথবা উচ্চারণগত সমস্যার কারণে অন্যের সাথে কথা বলা/ভাব বিনিময়ে বাঁধার সম্মুখীন হয়ে থাকে তাদের জন্য স্পিচ এ্যান্ড লাংগুয়েজ থেরাপি একটি বিজ্ঞান সম্মত চিকিৎসা ব্যবস্থা।

রোগীর সমস্যার ধরণ, কারণ ও রোগীর অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে একজন স্পিচ এ্যান্ড ল্যাংগুয়েজ থেরাপিস্ট নির্ধারণ করেন তাকে কিভাবে চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হবে। একজন থেরাপিস্ট শুধুমাত্র রোগীর শারীরিক, মানসিক অবস্থাই নয় বরং তার সামাজিক অবস্থা পর্যালোচনা করে চিকিৎসা দিয়ে থাকেন। রোগীকে তার পরিবার এবং সমাজের অন্য সবার সাথে যোগাযোগে সক্ষম করার জন্য সহায়ক সামগ্রীর ব্যবহার/বিকল্প পদ্ধতির ব্যবহার ও পরিবেশষগত পরিবতনের কথাও বিবেচনা করেন স্পিচ এ্যান্ড ল্যাংগুয়েজ থেরাপিস্ট।

যাদের জন্য স্পিচ এ্যান্ড ল্যাংগুয়েজ থেরাপি দরকারঃ

শিশুদের ক্ষেত্রেঃ

  • সেরিব্রাল পলসি
  • অটিজম
  • ডাউন সিনড্রোম
  • শ্রবণ প্রতিবন্ধী
  • এডিএইডি
  • ঠোট ও তালু কাটা
  • লিখন প্রতিবন্ধিতা
  • তোতলামী
  • খাবার চিবানো ও গিলতে সমস্যা
  • আর্টিকুলেশন এ্যান্ড ফোনোলোজিক্যাল ডিজঅর্ডার

স্নায়ুরোগ সম্বন্ধীয়ঃ

  • স্ট্রোক
  • ট্রমাটিক ব্রেইন ইনজুরি(মাথায় আঘাতপ্রাপ্ত রোগী)
  • আলজাইমার
  • ডিমেনসিয়া
  • গুলেনবারী সিনড্রোম
  • মোটর নিউরণ ডিজিজ

মানসিক সমস্যা সংক্রান্তঃ

  • সিজোফ্রেনিয়া
  • পারসোনালিটি ডিজঅর্ডার  
  • আংজাইটি ডিজর্ডার
  • বিষন্নতা
  • মাসকুলার ডিজট্রোফি
  • মেনিনজাইটিস

অন্যান্যঃ

হেড-নেক ক্যান্ডারের রোগীদের ক্ষেত্রেও স্পিচ এ্যান্ড ল্যাংগুজে থেরাপিস্ট চিকিৎসা দিয়ে থাকেন। 

কাউন্সেলিং

২০০৯ থেকে ২০১৮ সময়কালে সারাদেশে সর্বমোট ১০৩টি প্রতিবন্ধী সেবা ও সাহায্য কেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে। স্থানীয়ভাবে প্রতিবন্ধী হাসপাতাল নামে পরিচিতি লাভ করেছে। এসব কেন্দ্রে ফিজিওথেরাপি, ক্লিনিক্যাল ফিজিওথেরাপি, ক্লিনিক্যাল অকুপেশনাল থেরাপি, ক্লিনিক্যাল স্পিচ এ্যান্ড ল্যাংগুয়েজ থেরাপি এর মাধ্যমে অটিজমের শিকার শিশু/ব্যক্তি এবং অন্যান্য ধরণের প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের বিনামূল্যে নিয়মিত থেরাপি সেবা, হিয়ারিং টেস্ট, ভিজুয়্যাল টেস্ট, কাউন্সেলিং, প্রশিক্ষণ সেবা এবং বিনামূল্যে সহায়ক উপকরণ হিসেবে কৃত্রিম অংগ, হুইল চেয়ার, ট্রাইসাইকেল, ক্র্যাচ, স্ট্যান্ডিং ফ্রেম, ওয়াকিং ফ্রেম, সাদাছড়ি, এলবো ক্র্যাচ ইত্যাদি এবং আয়বর্ধক উপকরণ হিসেবে সেলাই মেশিন প্রদান করা হচ্ছে।

 


Share with :

Facebook Facebook